রাস্তায় ধরে মুসলিম নারীদের বোরকা কেটে দিচ্ছে পুলিশ

 Source: jugantor.com

উইঘুরে মুসলিম নারীদের ওপর নতুন করে নির্যাতন শুরু করেছে চীনের স্থানীয় পুলিশ। রাস্তায় বের হওয়া মুসলিম নারীদের ধরে ধরে জোর করে বোরকা বা বোরকা সদৃশ লম্বা পোষাক কেটে ফেলা হচ্ছে। খবর ইয়ানি শাফাকের।

দীর্ঘ দিন ধরেই চীনের উইঘুরে মুসলিম নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। রমজান মাসে সেখানে মুসলমানদের রোজা রাখার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা ও মুসলিম প্রথা অনুযায়ী শিশুদের নাম রাখা পর্যন্ত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

চীনের উইঘুর এলাকায় মুসলিম নারীদের পোষাক বিশেষ করে কোমরের নিচে পোষাক ঝুলে থাকলে বা বোরকা সদৃশ হলে তা কেটে নেয়ার নতুন এ নির্যাতন শুরু করেছে সেখানকার পুলিশ।

ডকুমেন্টিং এগেইনিস্ট মুসলিম (ডিওএম) নামক একটি সংগঠন জানিয়েছে, মুসলিম নারীদের পোষাক লম্বা হলে রাস্তার মাঝে তাকে ধরে তার পোষাক ছোট করে কেটে দেয়া হচ্ছে।

এর আগে রমজান মাসে শিনজিয়াং প্রদেশের করলা শহরে সরকারি ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ক্ষমতাসীন দলের সদস্য,সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষার্থী এবং সংখ্যালঘুরা রমজান মাসে কোনো অবস্থাতেই রোজা রাখতে পারবে না। কেউই ধর্মীয় কোনো আচার অনুষ্ঠানেও অংশ নিতে পারবে না।’ আরো বলা হয়েছে, রমজান মাসে খাবার এবং পানীয় ব্যবসা বন্ধ করা যাবে না।

চীনের ক্ষমতাসীন কমুনিস্ট পার্টি গত কয়েক বছর থেকে শিনজিয়াং প্রদেশে মুসলমানদের ওপর নানা ধর্মীয় নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে। শিনজিয়াং এলাকায় মুসলিম উইগুর সম্প্রদায়ের বসবাস রয়েছে। মুসলমানদের ওপর এই ধরণের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে বিশ্বের বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন তীব্র নিন্দা জানিয়ে আসছে।

Source: jugantor.com & parstoday.com

Facebook Comments

comments