সরকারের দেয়া কোনো ওষুধ খাবেন না খালেদা

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকদের দেওয়া ব্যবস্থাপত্র গ্রহণ করছেন না বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গতকাল সোমবার খালেদা জিয়া কারা কর্তৃপক্ষকে বলেছেন, ব্যক্তিগত চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া তিনি নতুন কোনো ওষুধ নেবেন না।

কারাগারের একটি সূত্র প্রথম আলোকে জানায়, কারাবিধি অনুযায়ী খালেদা জিয়ার এ চাওয়া পূরণ করা সম্ভব নয়। এ অবস্থায় আইনমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এ বিষয়ে পরামর্শ নেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এদিকে খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত থাকছে। দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) মঞ্জুর করে আপিল বিভাগের দেওয়া আদেশে এ কথা বলা হয়েছে। এ-সংক্রান্ত আদেশ গতকাল সোমবার প্রকাশিত হয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ড জানিয়েছে, খালেদা জিয়া অসুস্থ। তবে তা গুরুতর নয়। গত রোববার খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে দেখে আসে চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ড।

চিকিৎসক দলের প্রধান ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিকস বিভাগের চিকিৎসক অধ্যাপক মো. শামসুজ্জামান গতকাল বিবিসি বাংলাকে বলেন, খালেদা জিয়ার অসুস্থতা আগেও ছিল। এখন কিছুটা বেড়েছে। তবে তা খুব মারাত্মক নয়, গুরুতর পর্যায়ে যায়নি।

শামসুজ্জামান বলেন, ‘আমরা যেখানে বসে ছিলাম সেখান থেকে হয়তো ৫০ কিংবা ৬০ গজ দূরে তিনি (খালেদা জিয়া) ছিলেন। সেখান থেকে আমাদের কাছে আসতে তাঁর অনেকক্ষণ সময় লেগেছে। দুজন তাঁকে ধরে আনতে হয়েছে।’

শামসুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, তাঁরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন। খালেদা জিয়া ঘাড়ে, বাঁ হাতে ও পায়ে ব্যথা বোধ করেন। হাত ঝিমঝিম করে। তিনি আগে যেসব ওষুধ সেবন করতেন, তার সঙ্গে আরও কিছু ওষুধ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। রক্ত ও এক্স-রে পরীক্ষা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তাঁকে ব্যায়াম করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সর্বোপরি তিনি অসুস্থ, তবে গুরুতর নয়।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পর্কে জানাতে গতকাল সকালে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে তারা এ বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেনি। হাসপাতালের উপপরিচালক শাহ আলম তালুকদার বলেন, মেডিকেল বোর্ডের কোনো প্রতিবেদন তাঁদের কাছে আসেনি। এক প্রশ্নের জবাবে শাহ আলম বলেন, ‘খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছে চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ড। তবে এ ব্যাপারে চিকিৎসকদের কোনো প্রতিবেদন আমরা পাইনি। প্রতিবেদন পাওয়ার পর তা কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে।’

গতকাল বিকেলে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে দেখা করে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি জানান কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথম আলোকে বলেন, ‘চিকিৎসকেরা এখনো আমাদের কাছে কোনো প্রতিবেদন দেননি। তাঁরা মৌখিকভাবে জানিয়েছেন, খালেদা জিয়া তেমন অসুস্থ নন। যেসব সমস্যা দেখা যাচ্ছে তা আগে থেকেই ছিল।’

জামিন স্থগিত থাকছে

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিনের বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) মঞ্জুর করে ১৯ মার্চ আদেশ দেন আপিল বিভাগ। সেদিন আপিল বিভাগ খালেদা জিয়াকে দেওয়া জামিন স্থগিত করে ৮ মে আপিলের ওপর শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন। গতকাল দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান প্রথম আলোকে বলেন, ‘লিভ টু আপিল মঞ্জুর করে আপিল বিভাগের আদেশ প্রকাশিত হয়েছে। প্রত্যায়িত অনুলিপি আজ হাতে পাব। আপিলের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত থাকবে বলে আদেশে বলা হয়েছে।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারে নেওয়া হয়। তখন থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

সূত্র: প্রথম আলো

Facebook Comments

comments