বিএনপির দূরে নয়, পাশেই আছে জামায়াত

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০ দলীয় জোটনেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা হয়েছে। তিনি নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী আছেন। তার মুক্তির দাবিতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে বিএনপি। এসব কর্মসূচিতে জোটের প্রায় সব শরিককে সংহতি জানাতে দেখা গেলেও বড় শরিক জামায়াতকে দেখা যায়নি। এ নিয়ে ঘরে বাইরে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। তবে জামায়াতের নেতৃত্ব বলছে, বিএনপির দূরে নয়, পাশেই আছে জামায়াত।

গেলো ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। একই মামলায় সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্য ৫ জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়। রায়ের পর জামায়াতে ইসলামী একটি বিবৃতি দেয়। বিবৃতিতে দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে বাইরে রাখতে এ দণ্ড দিয়েছে সরকার।

তিনি বলেন, সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে আদালতকে ব্যবহার করার যে অপকৌশল গ্রহণ করেছে, এ রায় তারই ধারাবাহিকতা মাত্র। এ রায় জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। এরপর ১১ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার ডিভিশন চেয়ে আরেকটি বিবৃতি দেন তিনি। তবে কেবল বিবৃতি দেয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ থেকেছে দলটি। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন, অবস্থান কর্মসূচি, অনশন কর্মসূচি পালন করে। কোনোটিতেই জামায়াতের নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি।

সাধারণত জামায়াতের সাধারণ কর্মীরা বিএনপির কর্মসূচিতে মাঝে মাঝে অংশ নিলেও খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে ব্যত্যয় ঘটলো যা চোখে পড়ার মতো। (যদিও খালেদার রায়ের দিন গাড়িবহরে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে জামায়াত শিবিরের বেশকিছু নেতাকর্মীকে অংশ নিতে দেখা গেছে।) বিএনপি নেতাকর্মীরা এ নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলেননি। বুধবার দুপুরে প্রেসক্লাবে জামায়াত নেতা মাওলানা আবদুল হালিম বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে দেখা করে চলে আসেন।

যদিও গেলো ২৮ জানুয়ারি ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে এসেছিলেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম। তিনি বলেছিলেন, জামায়াতের বিরুদ্ধে অনেক প্রোপাগান্ডা চলছে। কোনো প্রোপাগান্ডায় কান দেবেন না। আমরা এতদিনে যেহেতু প্রবলেম হয়নি, ইনশাল্লাহ সামনেও হবে না। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে জামায়াত আছে, থাকবে।’

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান আরটিভি অনলাইনকে বলেন, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক যেমন ছিল, তেমনই আছে। এটা নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কী আছে? তিনি বলেন, তারা পৃথক একটি রাজনৈতিক দল। বিভিন্ন বিষয়ে তাদের ভিন্ন মত থাকতেই পারে। তবে জোটের মিটিংয়ে তারা বিএনপির সঙ্গে থাকার কথাই বলেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা দক্ষিণের আমির মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন পাল্টা প্রশ্ন করে বলেন, ‘বিএনপির সঙ্গে আমাদের বিরোধ হতে যাবে কেন? বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দেয়া রায় একটি ষড়যন্ত্রমূলক রায়। আমরা বিএনপির প্রতি সহমর্মী। বিএনপির পাশেই আছে জামায়াত। তিনি এও বলেন, রায়ের প্রতিবাদে জোটের কর্মসূচি দেয়া হবে বলে শুনেছি। আমরা সেখানে যাব।

সূত্র: আরটিভি অনলাইন

Facebook Comments

comments