‘এভাবে আমাকে সরিয়ে দেয়াটা মানুষ হিসেবে একটু লাগে’

‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের কাজ শেষ করে এনেছি। স্যাটেলাইট বিষয়ে মানুষের কোনও ধারণা ছিল না, থাকলেও ভ্রান্ত ধারণা ছিল। আমি সেই ধারণা সৃষ্টি করেছি এবং ভ্রান্ত ধারণা পাল্টে দিয়েছি। এরকম পরিস্থিতিতে আমাকে সরিয়ে দেওয়াটা মানুষ হিসেবে একটু লাগে। আমি তো ফেরেশতা নই, অন্য কিছুও নই; মানুষ। রক্তে-মাংসে গড়া।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী থেকে তথ্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর বুধবার (৩ জানুয়ারি) তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তারানা হালিম বাংলা ট্রিবিউনকে এসব কথা বলেন। তিনি প্রশ্ন করেন, ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটসহ আমার হাতে সম্পন্ন করা জিনিসগুলো যখন প্রধানমন্ত্রী ব্যতীত অন্য কেউ উদ্বোধন করবেন, সেটি যখন আমি দেখব, আমার লাগাটা কি স্বাভাবিক নয়?’

নতুন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সামনের পথ কী হবে, আমি জানি না। এ নিয়ে আমি কিছু ভাবিনি, পরিকল্পনাও করিনি। গত দুই বছর সততার সঙ্গে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে দায়িত্ব দিয়েছেন, তা পালন করেছি। প্রধানমন্ত্রীর মুখ উজ্জ্বল করার চেষ্টা করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘তারপরও আমি কৃতজ্ঞ আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার ওপর। তিনি আমাকে দু’বার এমপি বানিয়েছেন, প্রতিমন্ত্রী বানিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে তার সেই বিশ্বাস এবং আশ্বাস রাখার চেষ্টা করেছি। তবে নতুন যে দায়িত্ব সেখানে আমার কী কাজ হবে, তা আমি জানি না। এ নিয়ে আমি কোন পরিকল্পনাও করিনি।’

প্রতিমন্ত্রী বদলের কারণ জানালেন মোস্তাফা জব্বার

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমকে করা হয়েছে তথ্য প্রতিমন্ত্রী। ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মোস্তাফা জব্বার। তিনিই বলেছেন, ‘ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং আইসিটি বিভাগের মধ্যে ঘুণে ধরা একটি সম্পর্ক ছিল বলেই হয়তো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন একটি দুঃসাহসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’ বুধবার (৩ জানুয়ারি) বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মোস্তাফা জব্বার আশাবাদ ব্যক্ত করেন, তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর এ ধরনের কোনও সমস্যা আর থাকবে না। তবে তার মুখে শোনা গেলো, ‘ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। এখন নেই। কেন তিনি নেই জানি। কিন্তু এখানে বলা যাবে না।’

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বেসিস সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার প্রায় এক ঘণ্টা বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি সচিবালয়ে বসবো। তবে বেশিরভাগ সময় কাটাবো আগারগাঁওস্থ আইসিটি টাওয়ারের আইসিটি বিভাগে।’

মোস্তাফা জব্বারের ভাষ্য, ‘টেলিকম বিভাগে অনেক সমস্যা রয়েছে। অনেক জটিলতার মধ্যে রয়েছে খাতটি। এটিকে টেনে তুলতে হবে। ফলে সেখানেও সময় দিতে হলেও আইসিটি বিভাগে আমার সময় কাটবে। আইসিটি বিভাগে সবাই সহজে আমার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাবে, সচিবালয়ে যা নেই। আমি সুযোগটি কাজে লাগাতে চাই।’

বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) নিজের প্রথম কার্যদিবসে আইসিটি বিভাগেই অফিস করবেন বলে জানান মোস্তাফা জব্বার।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here