প্রধান বিচারপতি কি আদৌ পদত্যাগ করেছেন?

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহাকে ঘিরে নানা বিতর্কের পর এবার তার পদত্যাগ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, প্রধান বিচারপতি আদৌ পদত্যাগ করেছেন কিনা তা নিয়ে মতানৈক্য আছে, বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয়।

শুক্রবার বিকাল ৪টায় সিলেটের সুনামগঞ্জ শহরের কাজির পয়েন্টে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি আয়োজিত এক কর্মী সভায় এ প্রশ্ন তোলেন তিনি।

গয়েশ্বর বলেন, প্রধান বিচারপতি পদত্যাগের পর শূন্য পদ পূরণ করার নির্ধারিত সময় থাকে, কিন্তু এখনও সেই পদে নিয়োগ হয়নি। এই বিষয়ের আলোকে দেখলে, নিম্ন আদালত থেকে উচ্চ আদালত পর্যন্ত সম্পূর্ণটা সরকারের নিয়ন্ত্রণে।

বিএনপি নেতা বলেন- আদালত স্বাধীন নয়, স্বাধীনভাবে মানুষের মামলা নিষ্পত্তি করতে পারে না। আদালতে সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী রায় হয়।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে গয়েশ্বর বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন কখনও সুষ্ঠু ও অবাধ হয় না। সেই কারণে বিএনপি একটি নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে সবার অংশগ্রহণে অর্থবহ একটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আন্দোলন করছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের নির্বাচনের বৈশিষ্ট্যের ওপর জনগণের আস্থা নেই এবং জনগণ ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার মতো আগ্রহও নেই। জনগণ যদি নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে সেই নির্বাচনে বিএনপি কেন যাবে? এমন প্রশ্নও করেন এই বিএনপি নেতা।

গয়েশ্বর বলেন, দেশে এই মুহূর্তে বিএনপি কোনো পক্ষ না। দেশের জনগণ একটি পক্ষ আর তার বিপরীতে বর্তমান সরকার আরেকটি পক্ষ। ইতিহাস বলে জনগণ কখনও পরাস্থ হয় না। আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের ভোটের দাবি আদায় করব।

জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম নূরুলের সঞ্চালনায় কর্মীসভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট ফজলুল হক আছপিয়া, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাখাওয়াত হাসান জীবন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাছির চৌধুরী, মিজানুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

কর্মীসভাকে ঘিরে সুনামগঞ্জ জেলার সব স্থরের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে।

সূত্র: যুগান্তর

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here