ইলিয়াস আলী সরকারের ‘হেফাজতেই’ আছেন!

নতুন করে আশা জাগছে বিএনপি নেতা-কর্মীদের মনে। সাম্প্রতিক সময়ে ‘নিখোঁজ’ হওয়া একাধিক ব্যক্তি ‘ফিরে আসা’র ঘটনায় প্রত্যাশা বাড়ছে তাদের মধ্যে। বিএনপি নেতা-কর্মীরা বলছেন, নিখোঁজ ব্যক্তিরা যেভাবে ফিরে আসছেন, ইলিয়াস আলীও একদিন এভাবে ‘ফিরতে পারেন’। দলটির নেতা-কর্মীদের দাবি, ইলিয়াস আলী সরকারের ‘হেফাজতেই’ আছেন।

ইলিয়াস আলী যখন ‘নিখোঁজ’ হন, তখন তিনি বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি ছিলেন। ঢাকার বনানী থেকে ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল নিজের ব্যক্তিগত গাড়ির চালক আনসার আলীসহ ‘নিখোঁজ’ হন তিনি। বনানীর দুই নম্বর রোডের সাউথ পয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে পাওয়া যায় ইলিয়াসের গাড়ি। এরপর প্রায় ছয় বছর হতে চললেও খোঁজ মেলেনি ভারতের টিপাইমুখ বাঁধবিরোধী আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা রাখা ইলিয়াসের। ইলিয়াস আলী ‘নিখোঁজ’ হওয়ার পর উত্তাল হয়েছিল গোটা দেশ। বিশেষ করে বৃহত্তর সিলেটে দানা বেঁধেছিল সর্বাত্মক আন্দোলনের। তাঁর সন্ধান দাবিতে কয়েক দফায় হরতালও হয়েছে। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছেন কয়েকজন। বিএনপির পক্ষ থেকে সব সময়ই দাবি করা হয়েছে, ইলিয়াস আলীকে সরকার ‘গুম করে রেখেছে’। তবে ক্ষমতাসীনদের পক্ষ থেকে তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

সম্প্রতি ‘নিখোঁজ’ হওয়া ছয়জন ‘ফিরে এসেছেন’। তার মধ্যে আছেন— পৌর মেয়র মো. রুকনুজ্জামান, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক মোবাশ্বার হাসান, সাংবাদিক উৎপল দাস, ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায় ও ব্যাংক কর্মকর্তা শামীম আহমদ। এ ছাড়া গত ২৭ আগস্ট থেকে ‘নিখোঁজ’ থাকা কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এ এম এম আমিনুর রহমানকে শুক্রবার দিবাগত রাতে ‘উদ্ধার’ করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ‘নিখোঁজ’ ব্যক্তিদের এই ফিরে আসায় আশান্বিত হয়ে উঠেছেন বিএনপি নেতা-কর্মীরা। ‘ফিরে আসার’ মিছিলে ইলিয়াস আলীর নামও যুক্ত হতে পারে বলে প্রত্যাশা করছেন তারা।

গত শনিবার ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় নিখোঁজরা ফিরতে শুরু করেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাষ্য অনুযায়ী কি আমরা ইলিয়াস আলীসহ গুম হওয়া কমপক্ষে ৭৫০ জন বিএনপি নেতা-কর্মীকে ফিরে পেতে অপেক্ষা করব?’

ইলিয়াস মুক্তি ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল কাইয়ুম বলেন, ‘নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিদের কেউ কেউ যখন ফিরে আসেন, তখন আমাদের মনে নতুন করে ইলিয়াস আলীকে ফিরে পাওয়ার আশা জাগে। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস, আমরা ইলিয়াস আলীকে ফিরে পাব।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি ইলিয়াস আলী সরকারের জিম্মায় আছেন।’ সিলেট মহানগর বিএনপির সহসভাপতি ফরহাদ চৌধুরী শামীম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘ইলিয়াস নিখোঁজের পর থেকেই আমরা দাবি করে আসছি, তাঁকে সরকার গুম করে রেখেছে। গত কিছুদিন ধরে নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিরা যেভাবে ফিরে আসছেন, তাতে আমরা আশাবাদী ইলিয়াসকে সরকার ফিরিয়ে দেবে।
সম্প্রতি নিখোঁজ ব্যক্তিরা ফিরে আসায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে ইলিয়াসকে ফিরে পাওয়ার প্রত্যাশা আরও বেড়েছে।’ সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীম বলেন, ‘আমরা ইলিয়াসের ফেরার ব্যাপারে আশাবাদী, সে জন্যই তাঁর সন্ধান দাবিতে নানা কর্মসূচি পালন করছি। ইলিয়াস তাঁর পরিবারের মধ্যে ফিরবেন, রাজনীতির মাঠে নামবেন, নেতা-কর্মীদের এমন প্রত্যাশা গত কয়েক দিনে আরও জোরালো হয়েছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদির বলেন, ‘প্রতিটি দলীয় কর্মসূচিতে আমরা ইলিয়াস আলীকে ফেরত দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি। সরকার চাইলে সবকিছু সম্ভব, এটা গত কয়েকদিন নিখোঁজ ব্যক্তিদের ফিরে আসায় প্রমাণিত হয়েছে। আমাদের বিশ্বাস, ইলিয়াস সরকারের হেফাজতে আছেন। তাঁকে ফিরিয়ে দিতে আবারও আমরা দাবি জানাচ্ছি।’

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here