সেনা মোতায়েন হবে, তবে ‘কিন্তু’ আছে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। তবে কোন প্রক্রিয়ায় সেনা মোতায়েন হবে, তা এখনও খোলাসা করেননি এই কমিশনার। এদিকে সেনা মোতায়েনের পক্ষে হলেও ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা সম্ভব হবে না বলে তিনি জানান।

সোমবার (১৩ নভেম্বর) আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ তথ্য জানান।

মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হবে। তবে এখানে একটা ‘কিন্তু’ আছে। সেনা বাহিনীকে আমরা কিভাবে কাজে লাগাবো, নির্বাচনি প্রক্রিয়ায় সেনাবাহিনী কিভাবে যুক্ত হবে, সেটি বলার সময় এখনও হয়নি। কমিশনে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সেনা মোতায়েনের বিষয়ে কমিশন এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা কমিশনাররা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে আলোচনা করেছি এবং আমাদের সবারই অনুভূতি হচ্ছে, সেনা মোতায়েন হোক। তবে এটাকে কমিশনের সিদ্ধান্ত বলা যাবে না। সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে সিদ্ধান্তটা উঠে আসবে। কারণ, সময়ই বলে দেবে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার।’

সেনা মোতায়েনের বিষয়টি বিএনপির দাবির অগ্রগতি কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি এটা মনে করি না। বিএনপি সেনা মোতায়েন হবে বলেনি। তারা বলেছে, ম্যাজিস্ট্রেসি পাওয়ারসহ সেনা মোতায়েন করতে হবে। তবে বিএনপির বিষয়ে আমার কোনও বক্তব্য নেই।’

প্রসঙ্গত, ইসির সঙ্গে সংলাপে বিএনপি ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি করে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ সেনা মোতায়েনের বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু না বললেও তারা বলেছে, ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ সেনা মোতায়েনের আইনি সুযোগ নেই। আওয়ামী লীগের অবস্থান সেনা মোতায়েনের পক্ষে হলে তা হবে কেবল স্ট্রাইকিং বা রিজার্ভ ফোর্স হিসেবে।

ইভিএমের বিষয়ে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘আমরা ইভিএমের লোকজন ডেকেছিলাম। তারা আমাদের সেগুলো দেখিয়েছেন। আর এর আগে যেসব ইভিএম ব্যবহার করা হয়েছিল, সেগুলো সব বাতিল হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে আমরা সেই ইভিএমগুলোকে অকার্যকর বলে ঘোষণা করেছি। আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতেই হবে এমন কোনও চিন্তা আমাদের মধ্যে নেই। তবে ভবিষ্যতে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ইভিএম যুক্ত করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ইভিএম এমন একটা অনিবার্য বিষয়, যা ভবিষ্যতে আমাদের ব্যবহার করতে হবে। আমরা হয়তো এবার পারবো না। কারণ, আমাদের তো প্রাথমিক প্রস্তুতিই নেই। আমাদের একটি স্বচ্ছ নির্বাচন করতে হবে। সেই নির্বাচন যদি প্রশ্নবিদ্ধ যন্ত্র দিয়ে হয়, যন্ত্রকে যদি মানুষ নিয়ন্ত্রণ ও ব্যবহার করে, তাহলে সেটি দিয়ে আমরা প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করতে পারি না।’

ইভিএম ব্যবহার প্রসঙ্গে এই বক্তব্য ব্যক্তিগত অভিমত উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এবার ইভিএম ব্যবহার হবে কিনা, এ বিষয়ে আমার সন্দেহ আছে। ইভিএম ব্যবহারের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য যে সময় দরকার, যে অগ্রগতি দরকার, সেরকম সময় আমাদের হাতে নেই।’

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here