কাকরাইলে মা-ছেলে খুন

রাজধানীর কাকরাইলের নিজ বাসায় মা-ছেলে খুন হয়েছেন। আজ বুধবার সন্ধ্যায় নিজেদের ফ্ল্যাটে খুন হন তাঁরা। নিজ ফ্ল্যাটের সামনের বারান্দায় ছেলে ও ঘরের ভেতর মায়ের লাশ পড়ে ছিল। ওই বাড়ির দারোয়ান পুলিশে খবর দিলে সাতটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

কাকরাইলের রাজমণি-ইশা খাঁ হোটেলের বিপরীত পাশে তলা গলির ৬ তলা একটি ভবনের ৫ তলায় থাকতেন তাঁরা। ভিআইপি রোডের ৭৯/১, মায়াকানন নামের এই বাসায় ঘটনার সময় কাজের মেয়ে ছিলেন।

মায়ের নাম শামসুন্নাহার ও ছেলে নাম শাওন। মা গৃহিণী। আর ছেলে সম্প্রতি ‘ও’ লেভেল পরীক্ষা দিয়েছে বলে ভবনের অন্যান্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দারা জানিয়েছেন। পুলিশ বলছে, লাশ উদ্ধারের সময় তারা দেখেছে মায়ের গলায় ছুরির আঘাত ছিল আর ছেলের শরীর ছিল রক্তাক্ত।

বাড়ির মালিক ও গৃহকর্তা আবদুল করিম তখন বাসার বাইরে ছিলেন। তাঁর শ্যামপুরে ব্যবসা আছে।

বাসার কাজের মেয়ে বলেন, সন্ধ্যায় তিনি ফ্ল্যাটে ঢোকেন। এ সময় শামসুন্নাহার দরজা খুলে দেন। ঘটনার সময় তিনি রান্নাঘরে ছিলেন। কেউ একজন এসে বাইরে থেকে রান্নাঘরের দরজা লাগিয়ে দেয়। এরপর তিনি ‘ম্যাডাম’ শামসুন্নাহারের বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার শুনতে পান। কাজের মেয়ে বলেন, বাসার দারোয়ান এসে রান্নাঘরের দরজা খুলে দিলে তিনি সেখান থেকে বের হন।

বাসার দারোয়ান বলেন, সিঁড়ি দিয়ে এক ব্যক্তি নিচে নামার সময় তাঁকে বলেছেন, গিয়ে দেখেন ৫ তলায় কোনো ঝামেলা হচ্ছে। তিনি ৫ তলায় গিয়ে দেখেন ফ্ল্যাটের দরজায় ও ভেতরে দুজনের লাশ পড়ে আছে।

পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, ঘটনা সম্পর্কে জানতে বাসার দারোয়ান ও কাজের মেয়েকে থানায় নেওয়া হয়েছে। পুলিশের আশা, শিগগিরই এই হত্যার পেছনে কারা তা উদ্‌ঘাটিত হবে।

সূত্র: প্রথম আলো

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here